1. admin@esaharanews.com : admin :
মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৬:০২ পূর্বাহ্ন

আন্ডারগ্রাউন্ড নিউজ পোর্টালে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে অস্বীকার

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১০৩ বার পড়া হয়েছে

ঈশাহারানিউজ ডেস্ক : কাতার-ভিত্তিক বিতর্কিত গণমাধ্যম আল-জাজিরা’র স্বভাবই হচ্ছে অকারণে উন্নয়নশীল মডারেট মুসলিম দেশগুলো সম্পর্কে অযাচিত মিথ্যাচার। একারণে অনেক দেশেই আল জাজিরা নিষিদ্ধ। গত কয়েক বছর ধরে এটি বারংবার বাংলাদেশ সম্পর্কে নেতিবাচক বানোয়াট রিপোর্ট প্রচার করে যাচ্ছে। আল জাজিরা’র এই বাংলাদেশ বিরোধী অপপ্রচার শুরু হয় ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পর যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর থেকেই। কিছুদিন পরপর এই চ্যানেলটি বাংলাদেশ সম্পর্কে নানা ধরনের বানোয়াট তথ্য প্রচারের মাধ্যমে বিশ্বের বুকে আমাদের সুনাম বিনষ্টের ঘৃণ্য অপপ্রয়াস চালাচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে এই চ্যানেলটি বাংলাদেশ সম্পর্কে যে কথিত তদন্ত রিপোর্ট প্রচার করলো, সেটির পেছনে বিএনপি-জামাতের কিছু চিহ্নিত লোকের যোগসাজশের খবর আমরা এরই মাঝে জেনে গেছি। বাংলাদেশের কাণ্ডজ্ঞানসম্পন্ন গণমাধ্যম কর্মী এবং সম্পাদকগণ চমৎকারভাবে আল জাজিরীয় অপপ্রচার এড়িয়ে গেছেন কিংবা পাল্টা জবাব দিয়েছেন। এক্ষেত্রে জাতীয় দৈনিক নতুন সময়-এর ভুমিকা খুবই প্রশংসনীয়। পত্রিকাটি সূচনালগ্ন থেকেই বাংলাদেশের ভাবমূর্তি এবং সার্বভৌমত্বের বিষয়গুলো গুরুত্ব দিয়ে আসছে। একারণেই আজ কোটি-কোটি পাঠকের প্রিয় পত্রিকা নতুন সময়।
গত ৪ঠা ফেব্রুয়ারী ২০২১ তারিখে, ঢাকা মহানগরীর উত্তরখান এলাকা থেকে প্রকাশিত ‘আজকের আলোকিত সকাল’ নামের একটি অখ্যাত আন্ডারগ্রাউন্ড নিউজ পোর্টালে আল জাজিরা’র কথিত তদন্ত প্রতিবেদনের পক্ষে সাফাই গাওয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশকে সার্বভৌমত্বহীন দেশ আখ্যা দেয়া হয়েছে। নিউজ পোর্টালটির উপসম্পাদকীয়তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্পর্কেও ভয়ঙ্কর অবমাননাকর মন্তব্য করা হয়েছে। খাটো করার অপচেষ্টা চালানো হয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পুলিশের আইজি বেনজির আহমেদ, ঢাকা মহানগরীর পুলিশ কমিশনার সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদসহ অনেক সম্মানিত ব্যাক্তিবর্গকে, যা কোনও বিবেক সম্পন্ন মানুষের পক্ষে মেনে নেওয়া অসম্ভব।

‘আজকের আলোকিত সকাল’ নামের আন্ডারগ্রাউন্ড অখ্যাত নিউজ পোর্টালটির দেশ বিরোধী অপপ্রচারের বিষয়টি প্রথম তুলে ধরে আমার সম্পাদনায় প্রকাশিত ইংরেজি পত্রিকা ব্লিটজ।

ব্লিটজ এর রিপোর্টে যা আছেঃ

আল জাজিরাকে সমর্থন করে আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকা সরকার বিরোধী রিপোর্ট প্রকাশ

ঢাকার উত্তরখান এলাকা থেকে প্রকাশিত ‘আজকের আলোকিত সকাল’ নামের একটি পত্রিকা প্রধানমন্ত্রী, সেনা প্রধানসহ দেশের গোয়েন্দা সংস্থা ও নির্বাচন পদ্ধতিকে আক্রমন করে অপপ্রচার চালাচ্ছে। তথ্য অনুযায়ী, পত্রিকাটির সম্পাদক মোঃ মুখলেসুর রহমান মাসুম “আলজাজিরার থ্রিলার মুভি খ্যাত ‘All the Prime Minister’s Men এবং আমাদের প্রতিক্রিয়া” শিরোনামে গত ৪ঠা ফেব্রুয়ারী ২০২১ প্রকাশিত উপসম্পাদকীয়তে আল জাজিরার রিপোর্টের বিষয়বস্তুটিই শুধু সমর্থন করেননি, বরং তিনি এটিতে প্রধানমন্ত্রী, সেনা প্রধান, দেশের গোয়েন্দা সংস্থা এবং নির্বাচন পদ্ধতির সম্পর্কে বিষোদ্গার করেছেন। তিনি উপসম্পাদকীয়টিতে সরাসরি বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে অস্বীকার করেছেন। যদিও এই নিবন্ধের মাধ্যমে ‘আজকের আলোকিত সকাল’ পত্রিকাটির সম্পাদক এবং অন্য সদস্যদের সরকার-বিরোধী চরিত্র স্পষ্ট ফুটে উঠেছে তারপরও ‘আজকের আলোকিত সকাল’ পত্রিকার সম্পাদকসহ অন্য সদস্যদের সাথে উত্তরা এলাকায় দায়িত্বরত ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের সখ্যতা চোখে পড়ার মতো।

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়েরের প্রস্তুতিঃ

‘আজকের আলোকিত সকাল’ নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত বাংলাদেশ-বিরোধী উপসম্পাদকীয় সম্পর্কে বাংলাদেশ সূপ্রীম কোর্টের সিনিয়ার আইনজীবী এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অন্যতম নেতা এডভোকেট গোবীন্দ চন্দ্র প্রামাণিক বলেন, বাংলাদেশ একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র। আগামী মাসেই আমরা গর্বের সাথে স্বাধীনতার ৫০তম বার্ষিকী পালন করতে যাচ্ছি। ত্রিশ লক্ষ প্রাণ আর অসংখ্য মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতাকে অস্বীকার করে যারা বাংলাদেশকে সার্বভৌমত্বহীন দেশ আখ্যা দিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহীতা করেছেন। এধরণের অপরাধ যারা করে, তাদের কোনোভাবেই ছাড় দেয়া যায়না। একারণেই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আগামী ২২শে ফেব্রুয়ারী ২০২১, আদালত খোলার সাথে-সাথে ‘আজকের আলোকিত সকাল’ এর সম্পাদকসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে মামলা দায়ের করবো। এরই মাঝে আমার গোটা টিম মামলার দরখাস্তসহ প্রাসঙ্গিক প্রমানাদি প্রস্তুত করছে।

গোবিন্দ প্রামাণিক বলেন, ‘আজকের আলোকিত সকাল’ যে অপরাধ করেছে তা ক্ষমার অযোগ্য।

বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে অস্বীকার করে অবশ্যই ‘আজকের আলোকিত সকাল’ এর সাথে সংশ্লিষ্টরা মারাত্মক অপরাধ করেছেন। আমরা যারা বহু যুগ যাবত সাংবাদিকতা করি, আমরা জানি, বাকস্বাধীনতা মানে কাণ্ডজ্ঞানহীনতা নয়। এই পত্রিকা কিংবা নিউজ পোর্টাল – এটি যদি আন্ডারগ্রাউন্ডও হয়ে থাকে, তারপরও এদের কৃত অপরাধ কোনও অবস্থাতেই ছোট করে দেখা অনুচিত। কারণ, এরা নিজেদের কাণ্ডজ্ঞানহীনতার কারণে সমাজে অরাজকতা এমনকি অস্থিতিশীলতার সৃষ্টি করতে পারে।

সালাহ উদ্দিন শোয়েব চৌধুরী: আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন পুরস্কারপ্রাপ্ত জঙ্গিবাদ বিরোধী সাংবাদিক, গবেষক, মিডিয়া বিশেষজ্ঞ এবং প্রভাবশালী ইংরেজী পত্রিকা ব্লিটজ-এর সম্পাদক।
সুত্র :নতুন সময়

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

SJ