1. admin@esaharanews.com : admin :
মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৬:৩০ পূর্বাহ্ন

ধরা পড়লেন যেভাবে, হিন্দু সেজে বিয়ে

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১ মার্চ, ২০২১
  • ১১৭ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধিঃ বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার রত্নাপুর ইউনিয়নের ঐচারমাঠ গ্রামে হিন্দু সেজে বিয়ের আট বছর পর স্ত্রীর কাছে ধরা খেয়ে প্রতারক ইউসুফ আলী ওরফে ইমন ঘোষ এখন কারাগারে। ইউসুফ হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ থানার তারালিয়া গ্রামের কুরুশ মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার রাতে প্রথম স্ত্রী তাপসী বাদী হয়ে ইউসুফকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলায় ইউসুফকে গ্রেপ্তার করে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করা হলে বিচারক কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। তাপসী ঐচারমাঠ গ্রামের মৃত অটল বাড়ৈর মেয়ে।

আগৈলঝাড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম সরোয়ার জানান, আট বছর আগে আগৈলঝাড়ার ঐচারমাঠ গ্রামের তাপসী বাড়ৈর সাথে মোবাইল ফোনে পরিচয়ের সূত্র ধরে তাদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর ইউসুফ আলী তার নিজের পরিচয় ও ধর্ম গোপন রেখে ইমন ঘোষ পরিচয়ে হিন্দু রীতি অনুযায়ী বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে স্ত্রী তাপসীর বাবার বাড়ি থেকেই রাজমিস্ত্রীর কাজ করে ঘর সংসার চালিয়ে আসছিলেন ইমন। তাদের দাম্পত্য জীবনে অপূর্ব নামের চার বছরের ছেলে রয়েছে। সন্তান হওয়ার পর থেকে ইমন উধাও হয়ে যায়।

গত চার বছর আগে প্রথম স্ত্রী তাপসীর বিনা অনুমতিতে ইউসুফ আগের মতো নিজের পরিচয় ও ধর্ম গোপন রেখে একইভাবে ইমন ঘোষ পরিচয়ে আগৈলঝাড়া উপজেলার একই ইউনিয়নের তালতারমাঠ গ্রামের অতুল বেপারীর মেয়ে বৃষ্টি বেপারীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক করে তাকে বিয়ে করে। এরপর পাশের বরিশালের উজিরপুর উপজেলার সাতলা গ্রামের সুপেন্দ্র নাথ বিশ্বাসের বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে দ্বিতীয় স্ত্রী সাথে বসবাস শুরু করে ইমন ওরফে ইউসুফ।

ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পরপরই থানার এসআই শফিউল ইসলাম প্রতারক ইউসুফকে গ্রেপ্তার করে। পরবর্তীতে আদালতে পাঠালে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

SJ