1. admin@esaharanews.com : admin :
মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৬:৩৭ পূর্বাহ্ন

হনুমান চালীসা (বাংলা) —

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ, ২০২১
  • ৮২ বার পড়া হয়েছে

হনুমান চালীসা (বাংলা) —

স্মরণ করি শ্রী গুরু চরণ নিজ মন মুকুর সুধার ।
করি বর্ণন রঘুনাথ যশঃ যাহা ফল দায়ক চার ॥

বুদ্ধি তনু জানিয়া স্মরণ করি পবন কুমার ।
বল বুদ্ধি বিদ্যা দাও হে প্রভু হর মোর ক্লেশ আর মনের বিকার ॥

জয় হনূমান জ্ঞান গুণ সাগর ।
জয় কপিশ ত্রিলোক উজাগর ॥ ১ ॥

রাম দূত তুমি অতি বলশালী ।
অঞ্জনী পুত্র পবন সূত মহাবলী ॥ ২ ॥

বজরঙ্গী মহাবীর তুমি হনুমান ।
কুমতি নাশিয়া সুমতি কর দান ॥ ৩ ॥

কাঞ্চন বরণ তব তুমি হে সুরেশ ।
কর্ণে তে কুণ্ডল শভে কুঞ্চিত কেশ ॥ ৪ ॥

হাতে বজ্র তব আর ধ্বজা বিরাজে ।
সুন্দর মহাগদা কাঁধে সাজে ॥ ৫ ॥

শঙ্করাংশে জন্ম তব, হে কেশরী নন্দন ।
তেজ প্রতাপ তব মহা জগ বন্দন ॥ ৬ ॥

বিদ্যাবান গুণী তুমি অতি চতুর ।
রাম কাজ করিবারে তুমি যে আতুর ॥ ৭ ॥

প্রভু চরিত্র শুনিবার রাখ অভিলাষা ।
রাম-লখন আর সীতায় দাও ভালবাসা ॥ ৮ ॥

সূক্ষ্ম রুপ ধরি সীতার কাছে গেলে ।
বিকট রুপ ধরি লঙ্কা দগ্ধ করিলে ॥ ৯ ॥

ভীম রুপ ধরি তুমি অসুর সংহার ।
রামচন্দ্রের তুমি সর্ব কাজ কর ॥ ১০ ॥

সঞ্জীবন আনি তুমি বাঁচালে লক্ষ্মণ ।
রঘুবীর হন তাহে আনন্দিত মন ॥ ১১ ॥

রঘুপতি দিলেন তোমা আলিঙ্গন দান ।
কহিলেন তুমি ভাই ভরত সমান ॥ ১২ ॥

সহস্র বদন তব গাবে যশ খ্যাতি ।
এত বলি আলিঙ্গন করেন শ্রীপতি ॥ ১৩ ॥

সনকাদি ব্রহ্মাদি যতেক দেবগন ।
নারদ শারদ আদি দেব ঋষি গন ॥ ১৪ ॥

যম ও কুবেরের আদি দিকপালগনে ।
কবি ও কবিদ যত আছে ত্রিভুবনে ॥ ১৫ ॥

সুগ্রীবের উপকার তুমি হে করিলে ।
রামে মিলায়ে তারে, রাজপদ দিলে॥ ১৬ ॥

তোমারি মন্ত্র বিভীষন মানিল ।
লঙ্কেশ হইল সে, সারা বিশ্ব জানিল ॥ ১৭ ॥

সহস্র যোজন দূরে সূর্য কে দেখে ।
সুমধুর ফল ভাবি ধাইলে গ্রাসিতে ॥ ১৮ ॥

প্রভুমুদ্রিকা, রাখি মুখ মাঝে ।
জলধি লঙ্ঘিলে, রঘুনাথ কাজে ॥ ১৯ ॥

দুর্গম কাজ যত, জগতে আছে ।
সুগম যে হয় তাহা তোমারি কাছে ॥ ২০ ॥

তুমি যে দ্বারী, রাম দুয়ারে ।
তব আজ্ঞা বিনা কেহ, প্রবেশিতে নারে ॥ ২১ ॥

তোমারি স্মরণে যে, সব সুখ পা-ই ।
রক্ষক হ’লে তুমি, কোন ভয় না-হি ॥ ২২ ॥

নিজ তেজ নিজে তুমি কর সম্বরন ।
তোমার হুংকারে দেখ কাঁপে ত্রিভুবন ॥ ২৩ ॥

ভূত পিশাচ, নিকট নাহি আসে ।
মহাবীর নাম লয় যে, থাক তার পাশে ॥ ২৪ ॥

নাশ করহ সব রোগ, হরহ সব পীড়া ।
যে জন নিরত জপে, হনুমান বলবীরা ॥ ২৫ ॥

সব সঙ্কট কর মোচন, তুমি বীর হনুমান।
মন ক্রম বচনে, ধরে যে ধ্যান ॥ ২৬ ॥

সর্বোপরি রাম রাজার যে তপস্বী রূপ ।
তাহার সকল কাজ কর তুমি অনুপ ॥ ২৭ ॥

যে কোন মনোরথ, যে জন করিবে ।
তোমারি কৃপায় সে, অমিত ফল পাবে ॥ ২৮ ॥

চারি যুগ তব, প্রতাপ-বাখানি ।
জগতে খ্যাত তুমি, তাহা যে জানি ॥ ২৯ ॥

সাধু সন্ত দের তুমি রক্ষা করে ।
অসুর নিকন্দন রাম দুলারে ॥ ৩০ ॥

অষ্ট-সিদ্ধি আর, নয়-নিধির দাতা ।
আশীষ-করিলা তোমা, জানকী মাতা ॥ ৩১ ॥

রাম রসায়ন, তোমারি পাশে ।
রুঘুপতি সম মনে, রেখো এ দাসে ॥ ৩২ ॥

তোমারি ভজন গাহি, রাম পদ লভি ।
জনম জনম ভুলি, দুঃখ যে সবই ॥ ৩৩ ॥

অন্তিম কালে স্থান, দিও রঘুবর পুরে ।
রাম নাম সেথা যেন, পাই জপিবারে ॥ ৩৪ ॥

সব ছারি বল সবে জয় হনুমান ।
হনুমান সর্ব সুখ করিবে প্রদান ॥ ৩৫ ॥

সংকট মোচন করে, হরে সব পীড়া ।
যে জন স্মরণ করে, হনুমান বল বীরা ॥ ৩৬ ॥

জয়-জয়-জয়, হনুমান গোঁসাঈ ।
কৃপা করহ দেব, গুরুদেব এর ন্যায়-ই ॥ ৩৭ ॥

যেই জন শতবার ইহা পাঠ করে ।
সকল অশান্তি তার চলে যায় দূরে ॥ ৩৮ ॥

হনুমান চালীসা যে করে পঠন ।
সর্বকাজে সিদ্ধি লাভ করে সেই জন ॥ ৩৯ ॥

তুলসীদাস সর্বদাই শ্রী হরির দাস ।
মনের মন্দিরে প্রভু কর সদা বাস ॥ ৪০ ॥

পবন তনয়, সংকট হরণ, মঙ্গল মুরতি রুপ ।
রাম লখন সীতা সহ, হৃদয়ে বস হে কপিসূত ॥

পবন নন্দন প্রবল বিক্রম, রাম অনুগত অতি ।
চালীসা হেথায়, সমাপন হয়, পদে থাকে যেন মতি ॥

সীতাপতি শ্রী রামচন্দ্রের জয় ।
পবনসুত হনুমানের জয় ॥

.

শ্রীহনুমতে নমঃ

জয় শ্রী শ্রী হনুমান চালীসা

(সংগৃহীত)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

SJ