1. admin@esaharanews.com : admin :
মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৭:১৯ পূর্বাহ্ন

গোঘাটে সাধারণ মানুষদের প্রতিশ্রুতি ও বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিলেন মমতা

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বুধবার, ৩১ মার্চ, ২০২১
  • ৮৯ বার পড়া হয়েছে

গোঘাট, হুগলী : রাজ্যে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফার নির্বাচন। তার আগে বুধবার গোঘাটে জনসভা করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা নন্দীগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । গোঘাট থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন আবারও কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিলেন। অনুরোধ করলেন, একটি ভোটও যেন বিজেপিকে কেউ না দেয়। পাশাপাশি নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে বললেন নির্বাচনের পর বিহার, উত্তর প্রদেশ যেখানেই পালাও, কান ধরে টেনে আনবো”

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পায়ের চোট এখনও সারেনি। তবে তিনি দোমে যাওয়ার মানুষ নন। পায়ে প্লাস্টার করা অবস্থাতেই জোরকদমে নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী। হুইলচেয়ারে করেই রোড-শোও করছেন মঙ্গলবার নন্দীগ্রামে । শারীরিক অসুস্থতাকে গুরুত্ব না দিয়েই বুধবার নন্দীগ্রাম থেকে হুগলির গোঘাটে আসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে জনসভা থেকে বিজেপিকে নিশানা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “বিজেপি বাংলাকে ঘৃণা করে। সেই কারণেই আগে বহুবার পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তনের আবেদন করা হলেও কেন্দ্রের তরফে তাতে সম্মতি দেওয়া হয়নি।” হাথরাস প্রসঙ্গে কেন্দ্রকে তোপ দেগে বলেন, “যাই হয়ে যাক, বাংলাকে হাথরাস হতে দেব না। একটা মেয়ের গায়েও হাত দিতে দেব না।” এরপরই তৃণমূল নেত্রী আমজনতাকে আশ্বাস দিয়ে বলেন, “চাকরি দেব, কর্মসংস্থান হবে, কন্যাশ্রী, যুবশ্রী, সবুজ সাথী, স্বাস্থ্যসাথী সব পাবেন, শুধু অনুরোধ করব কেউ বিজেপিকে ভোট দেবেন না। সিপিএম-এর হার্মাদ আর তৃণমূলের গদ্দাররা এখন বিজেপি-র প্রার্থী। ওদের নিজেদের কিছু নেই।”

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন গোঘাটের সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারীদের সতর্ক করেন । এদিন নাম না করে সরাসরি শুভেন্দুকে আক্রমণ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “খাইয়ে পড়িয়ে মানুষ করেছি, দুধ, কলা দিয়ে কালসাপ পুষেছি।” এই সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ দিয়ে একটি কুকথা বেরিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে সেই মন্তব্য প্রত্যাহার করে শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলনেত্রী বলেন, “তুমিও লড়বে আর আমিও লড়ব। আমার কর্মীদের উপর হামলা কেন? আমার কর্মীদের মারধর করা হচ্ছে। আমার গাড়িতে আক্রমণ করা হচ্ছে।” এরপরই তৃণমূলনেত্রী এক প্রকার হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “শুধু ভোট বলে চেপে যাচ্ছি, নাহলে আমিও দেখে নিতাম, কে কত বড় নেতা। কার কত ক্ষমতা।”

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আমাদের কর্মীদের এমন মার মেরেছে একজন কোমায় চলে গেছে। ভোটটা শেষ হতে দাও । তারপর কোথায় পালাও দেখবো। কোথায় লুকোবে বিহার, উত্তর প্রদেশ? আমি কান ধরে টেনে অন্য। রবীন মান্নার খুনের জবাব দেব। আরও অনেক কিছু জানি, এখনও বলছি না।”

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

SJ