ঢাকাসোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১২:১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নিউটাউনে ভিলা, হোটেল ব্যবসাও রয়েছে এসএসসি নিয়োগ ‘দুর্নীতি’-কাণ্ডে ধৃত ‘মিডলম্যান’ প্রসন্নের

admin
আগস্ট ২৭, ২০২২ ৮:১৭ অপরাহ্ণ
পঠিত: 23 বার
Link Copied!

এসএসসি দুর্নীতি কাণ্ডে গ্রেফতার হয়েছেন আরও এক ‘মিডলম্যান’ প্রসন্ন রায়। গাড়ি ভাড়া দেওয়ার ব্যবসা রয়েছে। এ বার প্রসন্নের সম্পত্তি হদিস।

ইমরান খান, নিজস্ব সংবাদদাতা : এসএসসি নিয়োগ ‘দুর্নীতি’-কাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছিলেন প্রসন্নকুমার রায়। সিবিআইয়ের অভিযোগ, ধৃত প্রদীপকুমার সিংহের মতো তিনিও এক জন ‘মিডলম্যান’। সূত্রের খবর, এ বার প্রসন্নের একাধিক সম্পত্তির হদিস মিলেছে। জানা গিয়েছে, নিউটাউনে একটি ভিলায় সপরিবার থাকতেন তিনি। গাড়ি ভাড়া দেওয়ার ব্যবসা ছাড়াও রয়েছে অন্য ব্যবসা। প্রসন্নের গাড়িভাড়া দেওয়া একটি সংস্থা রয়েছে। সেই সংস্থার দফতর রয়েছে সল্টলেক জিডি ব্লকে। সেখানেই কম্পিউটার অপারেটর হিসাবে কাজ করতেন ‘মিডলম্যান’ প্রদীপ। তদন্তে জানা গিয়েছে, ২০০২ সাল থেকে গাড়ি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন প্রসন্ন। আগে উত্তর কলকাতায় এই সংস্থার দফতর ছিল। পরে সল্টলেকে সরিয়ে নিয়ে যান। প্রসন্নের সংস্থার এক কর্মী দাবি করেছেন, শিক্ষা দফতরেও গাড়ি ভাড়া দিতেন তিনি। এসএসসির উপদেষ্টা কমিটির প্রাক্তন চেয়ারম্যান শান্তিপ্রসাদ সিন্‌হার অফিসেও একাধিক বার গাড়ি ভাড়া দিয়েছিলেন। শান্তিপ্রসাদও এই মুহূর্তে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়ে জেলে রয়েছেন।প্রসন্নের এক পরিচিত দাবি করেছেন, গাড়ি ভাড়া দেওয়া ছাড়াও হোটেল ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত তিনি। উত্তরবঙ্গ-সহ রাজ্যের বেশ কিছু জেলায় হোটেল রয়েছে তাঁর। উত্তর ২৪ পরগনার রাজারহাটে প্রসন্ন এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের নামে সম্পত্তির হদিসও মিলেছে বলে সূত্রের খবর। নিউটাউনে একটি ভিলায় নিজের পরিবার নিয়ে থাকতেন প্রসন্ন।

গত ২৪ অগস্ট গ্রেফতার হয়েছিলেন ‘মিডলম্যান’ প্রদীপ। অভিযোগ, এসএসসির মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগে ‘অযোগ্য’ প্রার্থীদের খুঁজে আনতেন তিনি। তার পর বোর্ডের কর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দিতেন। তাঁকে জেরা করে সল্টলেকের যে সংস্থায় তিনি কাজ করতেন, সেখানে পৌঁছন তদন্তকারীরা। সেই সূত্রেই শুক্রবার গ্রেফতার করা হয় প্রসন্নকে।

অন্য দিকে, তদন্তে উঠে এসেছে, শান্তিপ্রসাদের মোবাইলে ‘ছোটু’ বলে যাঁর নম্বর সেভ রয়েছে, তিনি আসলে প্রদীপ। জেরায় প্রদীপ জানিয়েছেন, ‘বস’-এর নির্দেশেই এ সব করেছেন তিনি। সিবিআইয়ের ধারণা, এর নেপথ্যে রয়েছে বড় চক্র।

শনিবার সিবিআই আদালতে হাজির করানো হয় প্রসন্নকে। সিবিআইয়ের আইনজীবী তাঁকে সাত দিনের জন্য হেফাজতে নেওয়ার আবেদন করেছেন। যদিও প্রসন্নের আইনজীবী নুর নবি শেখ জানিয়েছেন, তাঁর মক্কেল অসুস্থ।। ২০১০ সালে বাইপাস হয়েছে। তাই তাঁকে জামিন দেওয়া হোক। শনিবার এই মামলার রায় স্থগিত রেখেছে আদালত।

সুত্রআনন্দবাজার পত্রিকা