ঢাকামঙ্গলবার, ৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৪:১৫
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হিন্দু ধর্ম 

ESAHARA NEWS
জানুয়ারি ৪, ২০২৩ ২:৫০ অপরাহ্ণ
পঠিত: 50 বার
Link Copied!

হিন্দু ধর্ম

“অহিংসা পরম ধর্ম” – এই মহাজনোক্তি আমরা ছোটকাল হতে শুনে বড় হয়েছি। আমাদের রক্তমাংস অস্থিমজ্জায় এই বাণী প্রোথিত হয়ে আছে।

অধিকাংশ ধর্মগুরুগণ আমাদের এই শিক্ষা দিয়ে থাকেন। কিন্তু এই অহিংসার বাণীকে আমরা একমাত্র ধর্মবাণী মনে করে একটি নপুংসক জাতিতে পরিণত হয়েছি।

ধর্মগুরুগণ আমাদের এই মহাভারতের শ্লোকের অর্দ্ধাংশ শুনিয়ে এমন জাতিতে পরিণত করেছেন যে, আমরা কখনো অস্ত্র ধরার কথা চিন্তাও করতে পারিনা।

কিন্তু আমাদের মনে প্রশ্ন জাগা উচিত ছিল এই যে, যেই মহাভারতের সর্বত্র ছড়িয়ে আছে যুদ্ধবিগ্রহের কথা সেই মহাভারতের মর্মবাণী কি অহিংসা হতে পারে ? আসুন প্রকৃত শ্লোকটি আমরা দেখে নেই।

অহিংসা পরমো ধর্ম্ম ধর্ম্ম হিংসা তথৈব চ ।।

অর্থ: হিংসা না করা মানুষের প্রকৃত ধর্ম কিন্তু নিজ ধর্ম রক্ষার প্রয়োজনে হিংসার আশ্রয় নেওয়া তার চেয়েও শ্রেষ্ঠ ধর্ম।

উক্ত শ্লোকে বলা হয়েছে এই যে, অনর্থক হিংসা করা নিষ্প্রয়োজন কিন্তু ধর্ম রক্ষার্থে হিংসা করাটাই শ্রেষ্ঠ ধর্ম। তাই ধর্মের প্রয়োজনে, জাতির প্রয়োজনে, দেশের প্রয়োজনে অহিংসা নয়, হিংসাই কর্তর্ব্য।

আমাদের জানা উচিত কোন্ কোন্ ব্যক্তির প্রতি হিংসা করা উচিত। আমাদের ধর্মশাস্ত্রে আততায়ী নামক ঘৃণ্য পশুদের বধের কথা বলা হয়েছে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক আততায়ীর সংজ্ঞা কী বা কারা ??

অগ্নিদো গরদশ্চৈব শস্ত্রপাণির্ধনাপহঃ।

ক্ষেত্রদারাপহারী চ ষড়েতে হ্যাততায়িনঃ।।

বশিষ্ঠ স্মৃতি:৩/১৬

অনুবাদ: যে ঘরে আগুন দেয়, খাবারে বিষ দেয়, ধারালো অস্ত্র দ্বারা হত্যা করতে উদ্যত হয়, ধনসম্পদ অপহরণকারী, ক্ষেতখামার অপহরণকারী ও ঘরের স্ত্রী অপহরণকারী, এই ছয় প্রকার দুষ্কৃতিকারীকে আততায়ী বলা হয়।

 

এই আততায়ীদের প্রতি কীরূপ আচরণ করতে হবে সে প্রসঙ্গে মনুসংহিতা বলছে-

গুরুং বা বালবৃদ্ধৌ বা ব্রাহ্মণং বা বহুশ্রুতম্।

আততায়িনমায়াস্তং হন্যাদেবাবিচারয়ন্।।                   ৮/৩৫০

অনুবাদ: সেই আততায়ী যদি গুরু, বালক, বৃদ্ধ, বহুশ্রুত ব্রাহ্মণ অথবা অতিশয় বিদ্বান্ ব্যক্তিও হয় তবুও অগ্রসরমান্ সেই আততায়ীকে তখনই বধ করবে।

তাছাড়া যারা সনাতন ধর্ম পালন করতে দেয় না, তাদের প্রতি কীরূপ আচরণ করতে হবে তাও বলা আছে।

শস্ত্রং দ্বিজাতিভির্গ্রাহ্যং ধর্ম্মো যত্রোপরুধ্যতে।

দ্বিজাতীনাঞ্চ বর্ণানাং বিপ্লবে কালকারিতে।।                ৮/৩৪৮

অনুবাদ: যদি কোন বিধর্মী তোমার ধর্ম সংস্কৃতি পালনে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় তবে তা তুমি বিপ্লবের সহিত মোকাবেলা করো।

আত্মনাশ্চ পরিত্রাণে দক্ষিণানাঞ্চ সঙ্গরে।

স্ত্রীবিপ্রাভ্যুপপত্তৌ চ ধর্ম্মেণ ঘ্নন্ ন দুষ্যতি।।   ৮/৩৪৯

অনুবাদ: যখন সাহসকারীরা সনাতন ধর্ম্ম পালন করতে না দেবে তখন তোমরাও তাদের সাথে এরূপ একই আচরণ করবে।

হর হর মহাদেব